তিউনিসিয়ায় জাদুঘরে জিম্মি নাটকের অবসান: ১৭ পর্যটক নিহত



19Tunis5-articleLargeতিউনিসিয়ার রাজধানী তিউনিসের জাতীয় জাদুঘরে বন্দুকধারীদের হামলায় ১৭ জন পর্যটক নিহত হয়েছেন। তাঁদের সবাই বিদেশি নাগরিক বলে ধারণা করা হচ্ছে। এর মধ্যে পোল্যান্ড, স্পেন, জার্মানি ও ইতালির নাগরিক রয়েছেন। পরে পুলিশের গুলিতে দুজন বন্দুকধারী এবং বন্দুকধারীদের গুলিতে পুলিশের এক সদস্য নিহত হন।

এ ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্র ও ফ্রান্স তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। এখবর জানিয়েছে নিউয়র্ক টাইমস।

এই হামলার সময় পাশেই অবস্থিত পার্লামেন্ট ভবনে একটি সন্ত্রাসবিরোধী আইন নিয়ে বিতর্ক চলছিল। বন্দুকধারীদের হামলার সঙ্গে এই আইন প্রণয়নের কোনো সম্পর্ক আছে কি না, জানা যায়নি।

দেশটির পুলিশ জানায়, বন্দুকধারীরা রাজধানী তিউনিসের বারদো জাদুঘরে অনেক পর্যটককে জিম্মি করে। হামলার সময় সেখানে প্রায় ১০০ পর্যটক ছিলেন।WDEWF

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন জানায়, বন্দুকধারীরা প্রথমে একটি গাড়িতে করে এসে পার্লামেন্ট ভবনে চড়াও হয় এবং গুলি চালাতে শুরু করে। এতে আরও বলা হয়, বন্দুকধারীদের একজনকে পার্লামেন্ট ভবনের ছাদে দেখা গেছে। ঘটনার পরপরই নিরাপত্তা বাহিনী পুরো এলাকাটি ঘিরে ফেলে এবং পার্লামেন্ট ভবন থেকে সবাইকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়।

কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে, পার্লামেন্ট ভবনের কাছে বারদো জাদুঘরে কালাশনিকভ রাইফেলধারী দুই বা ততোধিক ব্যক্তি ঢুকে পড়ে। তারা সেখানকার দর্শনার্থীদের জিম্মি করে এবং তাঁদের ওপর নির্বিচারে গুলি চালায়। পরে জিম্মিদের উদ্ধারে সেখানে নিরাপত্তা বাহিনী অভিযান চালায়।

তিউনিসিয়ার জাদুঘরে এই সন্ত্রাসী হামলাকে পর্যটনশিল্প ও সরকারের স্থিতিশীলতার জন্য হুমকি বলে মনে করছে কর্তৃপক্ষ। আরব দেশগুলোর মতো তিউনিসিয়াও ইসলামি মৌলবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করছে।

দেশটির প্রায় সাড়ে তিন হাজার নাগরিক ইসলামিক স্টেটে (আইএস) যোগ দিয়েছে। জঙ্গিবাদে জড়িত সন্দেহে দেশটির প্রশাসন এ বছর ফেব্রুয়ারিতে অন্তত ১০০ নাগরিককে গ্রেপ্তার করেছে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ইয়াসমিন রায়ান গতকাল বিবিসির সঙ্গে যখন কথা বলছিলেন, তখন জাদুঘরটির সামনে পাঁচ শতাধিক মানুষ ছিল। তিনি বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে জাদুঘরটির ওপর দিয়ে হেলিকপ্টার উড়তে দেখা গেছে।

Facebook Comments
It's only fair to share...Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
0