পাকিস্তান ২২২ রানে, ব্যাটিংয়ে নেমেছে দ. আফ্রিকা



South Africa v Pakistan - 2015 ICC Cricket World Cupকোয়ার্টার ফাইনালে এগিয়ে যাওয়ার হাইভোল্টেজ ম্যাচ মুখোমুখি পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকা। টস জিতে পাকিস্তানকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান প্রোটিয়া অধিনায়ক ডি ভিলিয়ার্স। ব্যাট করতে নেমে সবকয়টি উইকেট হারিয়ে পাকিস্তান সংগ্রহ করেছে ২২২ রানে।

প্রোটিয়া পেসারদের সামনে কিছুটা সাবধানী পাকিস্তানের দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান আহমেদ শেহজাদ ও সরফরাজ।  তবে দলীয় ৩০ ও ব্যক্তিগত ১৮ রানে সাজ ঘরে ফেরেন শেহজাদ।  এরপর, প্রোটিয়া বোলারদের শাসন করে স্কোর বোর্ডে দ্রুত রান যোগ করেছেন সরফরাজ ও ইউনিস খান জুটি।

ব্যক্তিগত ৪৯ রানে রানআউট হয়ে সাজঘরে ফিরেন সরফরাজ।  ৯২ রানে দুই উইকেট হারানো পাকিস্তানের ইনিংস ছোটো ছোটো জুটিতে এগিয়ে যায়। ৭ নম্বরে নামা আফ্রিদি ২২ রান করে সাজঘরে ফিরে গেলে আর কোনো টেল এন্ডারই রানের দেখা পাননি।

এরপর ব্যাট করতে নামা দলপতি মিসবাহ-উল হককে নিয়ে ইউনিস খান পার্টনারশিপ গড়ে তুলে রান বাড়ানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু প্রোটিয়া অধিনায়ক এ বি ডি ভিলিয়ার্সের বলে রুশোর হাতে ক্যাচ দিয়ে ইউনিসও (৩৭) ফিরে গেলে ৪০ রানে ভেঙ্গে যায় সে জুটি। এরপর শোয়েব মাকসুদ ক্রিজে এসে মিসবাহ-উল হকের সঙ্গে জুটি বাঁধার চেষ্টা করলেও আগের ম্যাচগুলোর মতোই এ ম্যাচেও ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। অ্যাবোটের বলেই রুশোকে অনেকটা ক্যাচ প্র্যাকটিস করিয়ে সাজঘরে ফেরেন মাকসুদ (৮)।

৪টি করে ম্যাচ খেলার পর ৬ পয়েন্ট নিয়ে ‘বি’ গ্রুপে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে প্রোটিয়ারা। অপরদিকে ৪ পয়েন্ট পেয়ে চতুর্থ স্থানে আছে পাকিস্তান।  কোনো দলেরই এখনো কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত হয়নি। তাই আজকের ম্যাচে যে দল জয় পাবে তাদের শেষ আটে খেলা নিশ্চিত হবে।

২২৩ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই মোহাম্মদ ইরফানের বলে সাজঘরে ফিরে গেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যান ডি কক।  শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত প্রোটিয়াদের সংগ্রহ ১ উইকেটে ১৮ রান।

পাকিস্তান একাদশ আহমেদ শেহজাদ, সরফরাজ আহমেদ, ইউনিস খান, মিসবাহ-উল-হক (অধিনায়ক), উমর আকমল (উইকেটরক্ষক), শহীদ আফ্রিদি, শোয়েব মাকসুদ, ওয়াহাব রিয়াজ, সোহেল খান, রাহাত আলি ও মোহাম্মদ ইরফান।

দক্ষিণ আফ্রিকা একাদশ হাশিম আমলা, কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক), ফাফ ডু প্লেসিস,  এবি ডি ভিলিয়ার্স (অধিনায়ক), ডেভিড মিলার,  জেপি ডুমিনি, রিলি রুশো, কাইল অ্যাবোট, ডেল স্টেইন, মরনে মরকেল ও ইমরান তাহির।

Facebook Comments
It's only fair to share...Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
0