প্রকৃত মানুষের মাঝে আপনি যে বৈশিষ্ট্যগুলো খুঁজে পাবেন



Woman unmaskedযদি কারো সাথে ব্যবসা, যোগাযোগ স্থাপন অথবা বন্ধুত্ব শুরু করতে চাই তাহলে অবশ্যই আমরা প্রকৃত মানুষ খুঁজে থাকি। প্রকৃতপক্ষে আমরা কেউই কৃত্রিম চরিত্র পছন্দ করি না। অন্যদিকে, কৃত্রিমতায় ভরপুর চরিত্রের সাথে চলতে পারলেও এধরনের চরিত্রকে আপনি নিজের জন্য বিবেচনায় আনতে পারবেন না।

প্রকৃত চরিত্রের মানুষ বলতে আমরা নিজের চরিত্রের প্রতি যত্নবান, সততা সম্পন্ন মানুষকেই বুঝি। এই প্রকৃতির মানুষ গুলো সাধারনত আচরণের দিক দিয়ে ভিতর ও বাহিরে একই চরিত্রের হয়ে থাকে এবং এটি অবশ্যই কষ্টসহিষ্ণু একটি গুণ। প্রায় সকল মানুষের মাঝে এই সমস্যাটি বিদ্যমান যে, আমরা একে অন্যের প্রতি আচরণের ক্ষেত্রে আপেক্ষিক হয়ে থাকি। আমরা নিজের সুবিধা-অসুবিধার কথা বিবেচনা করে পারস্পারিক আচরণ গুলো করে থাকি।

প্রকৃত মানুষের সংখ্যা খুবই নগন্য। বর্তমানে সময়ে আমাদের চারপাশে অকৃত্রিম আলোর ঝলকানি, সবধরনের মিডিয়া দৌরাত্ম্য, ভার্চুয়াল ব্যক্তিত্ব, সর্বত্র ইতিবাচক মনোভাব প্রকাশ ও পারসনাল ব্রান্ডিং এর কারনে আমরা প্রত্যেকেই নিজ নিজ মহলে নিজের গুরুত্ব বৃদ্ধিতে ব্যস্ত এবং নিজের অবস্থান স্বীকার না করার ফলে আমাদের মাঝে থেকে প্রকৃত চরিত্রের গুন গুলোর পরিবর্তে কৃত্রিমতা বাসা বেঁধেছে।

উদ্যোক্তাদের একটি ওয়েবসাইট থেকে অনুদিত প্রকৃত চরিত্রের এই গুণাবলীসমুহ আপনার আত্মউপলব্ধিতে সাহায্য করবে।

তারা অন্যের দৃষ্টি আকর্ষণ করবে না
প্রকৃত চরিত্রের মানুষগুলো নিজেদের প্রতি যথেষ্ট আত্মবিশ্বাস ও আত্মসচেতনতা থাকায় তারা চারপাশের দৃষ্টি আকর্ষণে উদ্যোগী হবে না। এমনকি তারা আত্ম-মর্যাদার বিষয়ে দৃঢ় হবে না।

তারা অন্যের পছন্দ-অপছন্দ নিয়ে বিচলিত হবে না
নিরাপত্তাহীনতা বা বাসনা থেকে অপরের পছন্দ – অপছন্দের উপর মানুষের নির্ভরতা বৃদ্ধি পায়। যা আপনার মাঝে নিজের ও অন্যের আবেগের নেতিবাচক ব্যবহার করতে শেখায়। আত্মবিশ্বাসী এবং প্রকৃত চরিত্রের মানুষগুলো সাধারনত নিজের প্রতি প্রসন্নতা বোধ করেন। যে কারন আপনি তাকে পছন্দ করলে ভাল, কিংবা অপছন্দ করলেও তারা সমস্যা মনে করে না।

তারা অন্যের ব্যাপারে সতর্ক থাকে
মুলত সাদামাটা মানুষগুলো সহজাত ভাবেই বোকা হয়ে থাকে। কিন্তু প্রকৃত চরিত্রের মানুষগুলো তেমনটি নয়। তারা বাস্তববাদী হয়ে থাকে এবং এই বিষয়টি তাদের চরিত্রের ভিত গঠনে সাহায্য করে। অন্যের সাথে যুক্ত হওয়ার ক্ষেত্রে তারা এই বিষয়টি বিবেচনায় রাখে, যেটা একটি বিশেষ চারিত্রিক পার্থক্য নির্দেশ করে।four-leaf-clover

নিজেকে নিয়ে তারা সুখী থাকে: সত্তর দশকের অভিনেতা লিওনার্ড নিময় বলেন, “আমি নিজেকে নিয়ে সবসময় সুখী, যেমনটি চিনামাটির পাত্র সবসময় একই রকম থাকে কিন্তু অধিকাংশ মানুষ নিজেকে সুখী করতে আজীবন সংগ্রাম করে যায়।” হেনরি ডেভিড থ্রু পর্যবেক্ষণ করে বলেন, “অধিকাংশ মানুষ জীবন পরিচালনায় অনেক বেশি বেপরোয়া হয়ে গেছে।”

তারা যা করে তাই বলে এবং যা বলে তার একটিই অর্থ থাকে
প্রকৃত চরিত্রের মানুষগুলো মাঝে কৌশলী বা অতিরঞ্জিত হওয়া প্রবনতা নেই। তারা সব সময় নিজেদের দেয়া কথার ব্যাপারে অঙ্গিকারাবদ্ধ থাকে এবং শব্দ চয়নে কৌশলের আশ্রয় নিয়ে সত্যের উপর প্রলেপ দেয় না। যদি আপনি চান তাহলে তারা আপনার সাথে কথা বলবে এবং আপনার অপছন্দ হলেও তারা সত্য কথায় বলবে।

জীবন যাপনে তাদের খুব বেশি উপাদনের প্রয়োজন হয় না
আপনি তখনি প্রকৃত সুখী মানুষ হবেন যখন নিজেকে নিয়ে আপনি সুখানুভব করবেন, এজন্য আপনার খুব বেশি বৈষয়িক উপায়-উপকরনের দরকার হবে না। প্রকৃত চরিত্রের মানুষ গুলো জানে কোথায় তারা সুখানুভব করবে, যেমন নিজের চারপাশের উপাদান সমুহ, কাউকে ভালোবাসার মাঝে, নিজের কাজের মধ্যে। তারা খুব সাধারন বিষয়ের মাঝে নিজের প্রসন্নতা খুজে পায়।

তারা সাধারনত  থিন-স্কিনের অধিকারী হয় না
তারা নিজেদের বিষয়ে কখনই অতিরিক্ত সিরিয়াস হয় না। তাই নিজের ইচ্ছা বা অভিপ্রায় অপূর্ণ থাকলেও তারা আইনের লঙ্ঘন করে না।

o-CONFIDENCE-570তারা খুব বেশি বিনয়ী অথবা দাম্ভিকতা সম্পন্ন হয় না
নিজের শক্ত অবস্থান সম্পর্কে সচেতন থাকায় তাদের বড়াই করতে দেখা যায় না। এজন্য প্রকৃত মানুষগুলোর মাঝে কৃত্রিম বিনয়ী স্বভাব পরিলক্ষিত হয় না। লজ্জা মানুষের একটি ইতিবাচক চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য তবে অকপটে সত্যটি প্রকাশ করা তার চেয়ে উত্তম।

তারা সামঞ্জস্যপূর্ণ চরিত্রের অধিকারী
প্রকৃত চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন মানুষগুলোর মাঝে আপনি খুজে পাবেন ভাবগাম্ভীর্য্য, দৃঢ় অথবা বলিষ্ট মনোভাব। তারা নিজেদের অনেক বেশি চিনে ও বুঝে থাকে এবং নিজেদের প্রকৃত অনুভূতি সম্পর্কে সচেতন থাকে। সঠিক পথ সম্পর্কে তারা কম-বেশি হিসাব কষতে পারে।

তারা মানুষকে যা উপদেশ দেয় নিজেরাও তাই করে থাকে
প্রকৃত চরিত্রের অধিকারী মানুষগুলো অন্যেদের সেই উপদেশ দেয় না, যা তারা নিজেরা করে না। যদিও তারা নিজেদের অন্যের থেকে ভালো মানুষ মনে করে না বরং এটি তাদের স্বাভাবিক গুন গুলোর অন্যতম।

আপনি এ জাতীয় চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন মানুষগুলো মাঝে একই ধরনের বাস্তবমুখী সামঞ্জস্যপূর্ণ আত্মসচেতনতা দেখতে পাবেন। বর্তমান সময়ে এটি যেমন অন্যেদের মাঝে খুঁজে পাওয়া কঠিন ঠিক তেমনি নিজে অর্জন করাও কঠিন।

আব্দুল্লাহ নোমান

Facebook Comments
It's only fair to share...Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
0