ভিজিটিং কার্ড আপনার পেশাগত অস্তিত্বের বার্তা বহন করে



1780898_782249575195354_1345453511235840940_nসরকারী বা বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন কিংবা নিজেই উদ্যো্ক্তা অথবা বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা বা সৃজনশীল কাজের সাথে জড়িত আর আপনার পকেটে কোনো ভিজিটিং কার্ড নেই, ব্যাপারটা একটু বিব্রতকরই। নেটওয়ার্কিং এর এই সময়ে কেউ ভিজিটিং কার্ড চেয়ে বসার পর তা দেখাতে না পারলে বেশ লজ্জার মধ্যেই পড়ে যেতে হয়। ভিজিটিং কার্ড যেন আধুনিক জমানায় ব্যক্তির পেশাগত অস্তিত্বের বার্তা বহন করে চলেছে।

হালের করপোরেট যুগের অতীব প্রয়োজনীয় এই ভিজিটিং কার্ড কিন্তু ব্যবহৃত হতো প্রাচীন চীনে, সেই ২০৬ থেকে ২১০ খ্রিষ্টাব্দ সময়কালে। হার্ন রাজবংশের শাসনামলে সেখানে ভিজিটিং কার্ডের ব্যাপক প্রচলন ছিল। হার্ন শাসনামলের ওই ভিজিটিং কার্ড তৈরি হতো পাতলা কাঠ দিয়ে। কাঠের ওপর সাদা রং দিয়ে ব্যক্তির নাম, বসবাসের জায়গা ও তাঁর টাইটেল লেখা হতো। এই ভিজিটিং কার্ডের ব্যবহার যে খুব ব্যাপক ছিল, সেটা ভাবার অবশ্য কোনো কারণ নেই। সাধারণত রাজবংশ এবং সরকারি কাজের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরাই এই ভিজিটিং কার্ড ব্যবহারের সুযোগ পেতেন।

নিজের ভিজিটিং কার্ড কিভাবে তৈরি করবেনRounded-Corner-Black-Color-QR-Code-Business-Card-design

রাজধানী সহ দেশের প্রায় সকল বিভাগীয় ও জেলা শহরেই ভিজিটিং কার্ড ছাপানোর প্রতিষ্ঠান পাবেন। তবে ঢাকার ফকিরাপুল, নীলক্ষেত, বাংলাবাজার, পান্থপথ, ফার্মগেট ছাড়ার বিভিন্ন অঞ্চলে এজাতীয় প্রতিষ্ঠানের দেখা মিলে। ফকিরাপুল প্রিন্টিং মার্কেটে  প্রায় শতাধিক দোকানে বিভিন্ন ধরনের প্রিন্টিং এর কাজ করা হয়ে থাকে। যেমন- কার্ড ছাপানো, বই ছাপানো, বিয়ের কার্ড ছাপানো, লিফলেট ছাপানো, প্লাষ্টিক কার্ড ও প্লাষ্টিক ব্যানার এবং বিভিন্ন গ্রাফিক্স ও ডিজাইনের কার্ড এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের চালান পত্র ও ক্যাশ মেমো ছাপানো হয়ে থাকে।

যে বিষয় গুলো লক্ষ্য রাখতে হবে

  • চার কালার ভিজিটিং কার্ড প্রিন্টিং করতে প্রতি হাজারে ৪০০ থেকে ৭০০ টাকা। তবে স্পট দিয়ে প্রিন্ট করালে একটু বেশি খরচ পড়বে। সেক্ষেত্রে কার্ডের মান বৃদ্ধি পাবে।
  • বিভিন্ন ধরনের ডিজাইন এ ধরনের প্রতিষ্ঠানেই পাবেন। আবার নিজেও পছন্দ মত ডিজাইন করতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনার ডিজাইনের কার্ড প্রিন্ট করতে পারবে কিনা সেটি প্রতিষ্ঠানের সাথে কথা বলে অর্ডার দেয়া উচিত।
  • বাজারে বিভিন্ন ধরনের কার্ড রয়েছে। যেমন- Ambos Card, Mat Card, Glossy Card ইত্যাদি। এর মাঝে নিজের পছন্দ মত কার্ড অর্ডার দিতে পারবেন এবং সেজন্য খরচের তারতম্যের দিকেও লক্ষ্য রাখুন।simple-black-business-card
  • সাধারণত কার্ডের ডেলিভারী ৪ থেকে ৫ দিনের মধ্যে দেওয়া হয়ে থাকে। তাই ডেলিভারীর তারিখ ভালোভাবে জেনে নিন। আবার জরুরী ভিত্তিতেও ভিজিটিং কার্ড প্রিন্টিং করাতে পারবেন।
  • অঞ্চল ভেদে ভিজিটিং কার্ড ছাপানোর প্রতিষ্ঠান গুলো সপ্তাহে অন্ততঃ একদিন বন্ধ থাকে। সেই দিনটি বাদে প্রতিদিন সকাল ৯ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত খোলা পাওয়া যাবে।

আব্দুল্লাহ নোমান

Facebook Comments
It's only fair to share...Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
0