বস্ত্র প্রকৌশলে উচ্চ শিক্ষার আলোকিত প্রতিষ্ঠান নিটার



Sina_Pic_871745462

প্রকৌশলী আহমদ সাকিব সিনা, লেকচারার- জাতীয় বস্ত্র প্রকৌশল ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (নিটার)।।

এইচএসসি উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের বস্ত্র প্রকৌশলে উচ্চ শিক্ষার জন্য এখন সেরা সময়।  কেননা বস্ত্র শিল্প অমিত সম্ভাবনাময় এক শিল্প।  বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে যে সকল খাত দ্রুত ও উল্লেখযোগ্য অবদান রাখছে তার মধ্যে বস্ত্রশিল্প বর্তমানে সর্বাগ্রে অবস্থান করছে।

গত দুই দশকের মধ্যেই বস্ত্র খাত বাংলাদেশের সর্বোচ্চ প্রবৃদ্ধি অর্জনকারী খাতে পরিণত হয়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশের মোট বৈদেশিক আয়ের প্রায় ৮০ শতাংশই অর্জিত হয়ে থাকে টেক্সটাইল বা বস্ত্রশিল্প খাত হতে।  এছাড়াও তৈরি পোশাক রপ্তানির ক্ষেত্রে বিশ্বে আমাদের দেশের অবস্থান দ্বিতীয় এবং ক্রমেই শীর্ষস্থানের দিকে ধাবিত হচ্ছে।  ২০০৯ সালে বস্ত্র দপ্তরের পরিচালিত জরিপ অনুযায়ী, চলতি ২০১৫ সাল নাগাদ সংশ্লিষ্ট খাতে প্রায় বিশ হাজার টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারের চাহিদা তৈরি হবে।

বাস্তবে দেশে বিপুল সংখ্যক বস্ত্র প্রকৌশলীর অভাব আছে।  অর্থাৎ বর্তমান চাহিদার বিপরীতে বড় ধরনের একটি শূন্যস্থান থেকেই  যাচ্ছে।  এই শূন্যস্থান দ্রুতই পূরণ করতে হবে আমাদের।  অন্যথায় বস্ত্রখাতে আমাদের উন্নয়নের ধারা ব্যাহত হওয়ার আশংকা থাকবে।  বস্ত্র খাতে বাংলাদেশের অবস্থান সম্ভাবনাময় হলেও এ কথা অনস্বীকার্য যে, প্রত্যাশিত সফলতা অর্জন করার মত যথেষ্ট দক্ষ দেশীয় বস্ত্র প্রকৌশলী বর্তমানে আমাদের নেই।

ফলে দেশের বস্ত্র কারখানাগুলোতে দক্ষ বস্ত্র প্রকৌশলীর অভাব পূরণের জন্য উচ্চ বেতনের বিনিময়ে বিদেশি বস্ত্র প্রকৌশলীর দারস্থ হতে হচ্ছে।  ফলে এই খাতে উৎপাদন সংশ্লিষ্ট ব্যয়ের বড় একটি অংশ বিদেশে চলে যাচ্ছে।

বাংলাদেশের বস্ত্রশিল্প খাতে দক্ষ বস্ত্র প্রকৌশলীর অভাব পূরণের জন্য বস্ত্র শিক্ষার সম্প্রসারণ অত্যন্ত জরুরি হয়ে পড়েছে।  আশার কথা এই যে, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি এবং বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে বস্ত্র প্রকৌশল বা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয় চালু করা হয়েছে এবং দেশের সর্বাপেক্ষা সম্ভাবনাময় খাত হিসেবে সরকারের এই বিষয়ে পৃথক পরিকল্পনাও রয়েছে।  এই খাতে দক্ষ দেশীয় প্রকৌশলীর বিপুল চাহিদা থাকায় টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সের শিক্ষার্থীদের পাঠপ্রক্রিয়া সমাপ্ত হওয়ার সাথে সাথেই তারা কর্মক্ষেত্রে নিজেদের সম্পৃক্ত করতে পারছে এবং এর মাধ্যমে দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখার সুযোগ পাচ্ছে।  তাই পাঠ এবং ক্যারিয়ার গড়ার ক্ষেত্রে বিষয় হিসেবে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং অত্যন্ত সম্ভাবনাময় একটি বিষয়।

ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড রিচার্স (নিটার) এর অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মো. মিজানুর রহমান বলেন, বস্ত্রশিক্ষার ক্ষেত্রে উন্নত শিক্ষাপদ্ধতি, উপকরণ এর মাধ্যমে পাঠদান এবং নিয়মতান্ত্রিকভাবে একাডেমিক কার্যক্রম পরিচালনার ফলে ইতোমধ্যেই নিটার এর একটি স্বতন্ত্র অবস্থান তৈরি হয়েছে।  তাছাড়া প্রতিষ্ঠানটি একটি ইন্ডাস্ট্রিয়াল হাব এর মধ্যে অবস্থান করছে, বিধায় বাংলাদেশের বস্ত্রশিল্প খাতের প্রকৃত চিত্র সম্পর্কে সম্যক ধারণা অর্জন করা নিটারের শিক্ষার্থীদের জন্য অপেক্ষাকৃত সহজ। আগামী বছরই নিটার থেকে বিএসসি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সের প্রথম ব্যাচ বের হবে।  আমার দৃঢ় বিশ্বাস, অর্জিত কারিগরী দক্ষতা ও জ্ঞান এর প্রয়োগ ঘটিয়ে তারা দেশে দক্ষ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার এর অভাব পূরণ করবে।  তাছাড়া আগামীতে নিটারে এমএসসি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স চালু করা হলে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়াররা আরো পরিপূর্ণভাবে তাদের জ্ঞানের বিকাশ ঘটাতে পারবে।  ফলে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার ক্ষেত্রে নিটারের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ।

বাংলাদেশে বস্ত্র শিল্পে দক্ষ প্রকৌশলীর অভাব পূরণে ও দেশের বস্ত্র খাতে ইতিবাচক অবদান রাখার উদ্দেশ্যে নিটার গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের অধীনে চালু হয়েছে।  ২০০৯ সালের জুলাই থেকে বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস্ এসোসিয়েশন (বিটিএমএ) এর ব্যবস্থাপনায় পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশীপ (পিপিপি) এর আওতায় এটি পরিচালিত হয়ে আসছে।

রাজধানী ঢাকার সাভারের নয়ারহাট এলাকায় প্রায় ১৪ একর জায়গায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক সংলগ্ন স্থানে নিজস্ব ক্যাম্পাসে গড়ে উঠেছে এই ইনস্টিটিউট।  এর একাডেমিক, প্রশাসনিক ও আবাসিক সুবিধাসহ সর্বমোট ১ লক্ষ ৩০ হাজার বর্গফুট এর ভৌত অবকাঠামো রয়েছে।  ইনস্টিটিউটে কোর্স যথাযথভাবে পরিচালনার জন্য রয়েছে দক্ষ ও অভিজ্ঞ শিক্ষকমণ্ডলী।  এছাড়াও ইনস্টিটিউটে শিক্ষার্থীদের একাডেমিক শিক্ষা দেয়ার জন্য রয়েছে পর্যাপ্ত ক্লাসরুম ও ব্যবহারিক ক্লাশের জন্য রয়েছে পৃথক-পৃথক ইয়ার্ন ম্যানুফেকচারিং ল্যাব, ওয়েট প্রসেসিং ল্যাব, অ্যাপারেল ম্যানুফেকচারিং ল্যাব, টেস্টিং এন্ড কোয়ালিটি কন্ট্রোল ল্যাব, নিটিং ল্যাব, উইভিং ল্যাবসহ পদার্থবিদ্যা ও রসায়ন ল্যাব সুবিধা। নিটারের রয়েছে ডিজিটালাইড ও ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম সম্বলিত প্রায় ৯ হাজার পাঁচশ বই-জার্নাল-ম্যাগাজিন সমৃদ্ধ পৃথক লাইব্রেরি।

উন্নত কম্পিউটার সুবিধা সম্বলিত কম্পিউটার ল্যাব রয়েছে নিটারে।  এছাড়াও সার্বক্ষণিক ইন্টারনেট সুবিধাসম্বলিত ওয়াই-ফাই জোন ক্যাম্পাস রয়েছে নিটারের।  ছাত্রছাত্রীদের জন্য রয়েছে খেলার মাঠ।  বিএসসি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সের ইনস্টিটিউটের ছাত্রছাত্রীদের জন্য পৃথক হোস্টেল সুবিধা রয়েছে ক্যাম্পাসে।

বিটিএমএ প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণের পর এর শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও গবেষণা কার্যক্রম সম্প্রসারণের বিষয়ে উদ্যোগ গ্রহণ করে।  যার ফলশ্রুতিতে গত ২০১০-১১ শিক্ষাবর্ষ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ইনস্টিটিউটটিতে চার বছর মেয়াদী বিএসসি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স চালু করা হয়।  ২০১৩ সাল থেকেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি।  বর্তমানে এর ৪ টি ব্যাচে প্রায় ৬০০ জন ছাত্রছাত্রী অধ্যয়ন করছে।

শীঘ্রই এইচএসসি বিজ্ঞান বিভাগে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন, ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি অনুষদের অধীনে ২১০টি আসনে ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে বিএসসি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হবে।  আরও আশা করা হচ্ছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ইনস্টিটিউটটিতে শীঘ্রই  এমএসসি. ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সও চালু করা হবে।

নিটার এর যোগাযোগের ঠিকানাঃ নিটার, নয়ারহাট, সাভার, ঢাকা। ওয়েব সাইট: www.niter.edu.bd . ই মেইল: info@niter.edu.bd ; ad.niter@gmail.com. মোবাইল ফোন: ০১৭৫৫০৬০২৭৫। অফিস ফোন: ৭৭৯১৯৭২, ৭৭৯১৯৭৫।

Facebook Comments
It's only fair to share...Share on Facebook
Facebook
4Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
0